Fabric Inspection SOP (Standard Operating System)

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

১.০ উদ্দেশ্য: বায়াকের চাহিদা অনুযায়ী কোয়ালিটি সম্পন্ন ফেব্রিক গ্রহন ও ফেব্রিকের মান যাছাই করা ।

২.০ ফেব্রিক ল্যাব: সেকশনে সকল কর্মচারী ও কর্মকর্তাগন।

৩.০ দায়িত্বঃ সেকশন ইনচার্জ সকল ডকুমেন্টস সংগ্রহ করবে এবং সকল প্রসিডিউর সংশ্লিষ্ট সবাইকে বুঝিয়ে দিবে সঠিকভাবে সকল কাজ সম্পাদন হচ্ছে কিনা তা ফলোআপ করবে।

4.০ কাৰ্যাবলী:-

৪.১ ফেব্রিক ও ডকুমেন্টস রিসিভঃ

৪.২. ফেব্রিক ইন্সপেকশন মেশিন কেলিব্রেশনঃ

৪.৩ ফেব্রিক ইন্সপেকশন

৪.৪ ময়েশ্চার চেক

৪.৫ GSM & weight চেকঃ

৪.৬ Shrinkage চেকঃ

৪.৭ ব্ল্যাংকেট তৈরিঃ

৪.৮ প্যাটার্ণ গ্রুপিং।

৪.৯ শেড বুক/ শেড সামারিঃ

৪.১০ টুইস্টিংঃ

৪.১১ টিউব

৪.১২ কান্ট্রি প্ল্যানঃ

৪.১৩ হাউস কিপিং

৪.১৪ ডিলেটেড ডকুমেন্টসঃ

কার্যবলী বর্ননাঃ-

৪.১ ফেব্রিক ও ডকুমেন্টস রিসিভঃ ফেব্রিক ইন্সপেকশন করার পূর্বে ষ্টোর থেকে ফেব্রিক প্যাকিং লিষ্ট . সাপ্লাইয়েরর ফেব্রিক ইন্সপেকশন রিপোর্ট ,স্টোর ইনভেনটরী রিপোর্ট সহ ফেব্রিক রিসিভ করতে হবে।

৪.২ ফেব্রিক ইন্সপেকশন মেশিন কেলিব্রেশনঃ ফেব্রিক ইন্সপেকশন করার পূর্বে মেশিন ভালোভাবে পরিষ্কার করে কেলিব্রেশন করতে হবে। যদি ঠিক থাকে ফেব্রিক ইন্সপেকশন করবে যদি ঠিক না থাকে কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে এবং রেকর্ড রাখতে হবে।

৪.৩. ফেব্রিক ইন্সপেকশনঃ ফেব্রিক রিসিভ করার পর ৪ পয়েন্ট সিস্টেমে দুইজন ব্যক্তি দ্বারা দুই ঘন্টা পরপর বিরতী ‍দিয়ে সব কালার ও ডাই লট থেকে সর্বনিম্ন ১০% ফেব্রিক ইন্সপেকশন করতে হবে, যদি ফেল হয় আবার 20% ফেব্রিক ইন্সপেকশন করতে হবে। যদি আবার ফেল হয় তাহলে ১০০% ফেব্রিক ইন্সপেকশন করতে হবে। ফেব্রিক ইন্সপেকশন ফেল রোলটি রিজেকশন এরিয়াতে তালাবদ্ধ করে রাখতে হবে এবং দায়িত্বরত মার্চেন্ডাইজার ও কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে। পাশ হলে পরবর্তী প্রক্রিয়াটি শুরু করতে হবে।

যদি কোন কনসাইনমেন্ট ১০,০০০ মিটার বা এর কম ফেব্রিক রিসিভ করে তাহলে মিনিমাম ১,০০০ মিটার ফেব্রিক ইন্সপেকশন করতে হবে এবং ফেব্রিক ১০,০০০ মিটার এর বেশি হয় তাহলে ১০% ফেব্রিক ইন্সপেকশন করতে হবে। আর যদি ফেব্রিক ১০০০ মিটার বা এর কম হয় তাহলে ১০০% ফেব্রিক ইন্সপেকশন করতে হবে এবং সকল ব্রান্ড অর্ডারের ক্ষেত্রে ১০০% ফেব্রিক ইন্সপেকশন করতে হবে ও রেকর্ড রাখতে হবে।

নিম্নে ৪ পয়েন্টে ফেব্রিক চেক করার ধরন নিম্নে দেওয়া হলঃ-

৩ ইঞ্চি পর্যন্ত ত্রুটি =১ পয়েন্ট

৩ ইঞ্চি থেকে ৬ ইঞ্চি ত্রুটি = ২ পয়েন্ট

৬ ইঞ্চি থেকে ৯ ইঞ্চি ত্রুটি = ৩ পয়েন্ট

৯ অপেক্ষ বেশি = ৪ পয়েন্ট

=>ছিদ্র ও ওপেনিং

=১ ইঞ্চি অথবা কম পয়েন্ট = ১ পয়েন্ট

১ ইঞ্চি অপেক্ষা বেশি ৪ পয়েন্ট

তবে প্রতি গজ কাপড়ের মধ্যে ডিফেক্ট পয়েন্ট সর্বোচ্চ ৪ এর বেশি মানা করা যাবে না।

= মোট ত্রুটি পয়েন্ট/ মোট কাপড়ের দৈর্ঘ্য () X 100 X 65 ইঞ্চি পরিক্ষিত কাপড়ের এছ বা ভাষা (ইঞ্চি)

১৬.৯৫ ডিফেক্ট পয়েন্ট / ১০০ বর্গফুট

গ্রহনযোগ্য পয়েন্ট ফর ইয়ার্ড                             এভারেজ                     ইন্ডিভিজুয়ার রোল

       ফেব্রিক টাইপ                                                

      সকল ফেব্রিক টাইপ                                             ১৮                                      ২৪

৪.৪ ময়েশ্চার চেকঃ জোরা চের ফেব্রিক পরিদর্শনকালে নির্বাচিত রোল তিন পজিশন (প্রথম, মানে, শেষে) আর্দ্রতা পরীক্ষা করবে । ময়েশ্চার যদি ৪৫% এর মধ্যে থাকে তাহলে পরবর্তী প্রসেসের জন্য প্রস্তুত যদি ৪৫% এর চেয়ে বেশী হয় তাহলে দায়িত্বপ্রাপ্ত মার্চেন্ডাইজার ও কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে।

৪.৫. GSM & weight চেকঃ গ্রাম স্কয়ার পার মিটার (GSM) নীট ফেব্রিকের ক্ষেত্রে ১০% রোলের প্রতি ষ্কায়ার মিটারের ওজন চেক করা হয়। বায়ার এর চাহিদার (+-) ১০% পর্যন্ত গ্রহনযোগ্য।ডেনিমের ক্ষেত্রে ১০% রোলের ওজন চেক করতে হয়। এই ক্ষেত্রে বায়ারের প্রত্যাশার চেয়ে (+-) ৫% পর্যন্ত গ্রহনযোগ

৪.৬ লিংকেজ চেকঃ ওয়াশের পরে ওয়াশ গার্মেন্টসে কতটুকু সংকুচিত হবে তা চেক করতে হয়। গার্মেন্টস তৈরী করার পূর্বে কাপড়ের অনুযায়ী স্রিংকেজ চেক করতে হয়।

স্রিংকেজের কার্যাবলী-

৪.৬.১ ডেনিম ও স্প্যানডেক্সের ফেব্রিকের জন্য ১০০% রোল থেকে স্রিংকেজ চেক করতে হবে। কটন ফেব্রিকের জন্য ১০% রোল থেকে স্রিংকেজ চেক করতে হবে।

৪.৬.২ রোল থেকে ফেব্রিক কাটার পর ফেব্রিকের উপর রোল নাম্বার, শেড নাম্বার, ফেব্রিকের পরিমান, স্টাইলের নাম অর্ডার নাম্বার, ফেব্রিক কোড ইত্যাদি লিখবে।

৪.৬.৩ সেলবেজ সাইড ব্যতীত তিন সাইজে ওভারলক করবে এবং এটি হবে ৫০ সেমি X ৫৫ সেমি,

৪.৬.৪. ৫০ X ৫০ সিএম টেক্সাইল মার্কার নিয়ে মার্ক করে ওয়াশে পাঠাবে সাথে রেকর্ড রাখবে।

৪.৬.৫ ওয়াশে পাঠাবে সাথে ওয়াশ স্ট্যান্ডার্ড / এপ্রোভাল স্যাম্পল দিয়ে।

৪.৬.৬ ওয়াশ অবশ্যই স্যাম্পলের সাথে সামন্জস্য থাকবে।

৪.৬.৭ ওয়াশ থেকে আশার পর পূর্বের নির্ধারিত মার্ক অনুযায়ী মেজারমেন্ট করবে কতটুকু কম/বেশী হয়েছে। রিপোর্ট

        রাখবে।

৪.৬.৮ নন ওয়াশ গার্মেন্টস ১০% রোল ৫০ X ৫০ সিএম কাটবে।

৪.৬.৯ আয়রন এবং স্টিম দিবে

৪.৬.১০ আয়রন ও স্টিম এর পর মেজারমেন্ট করবে এবং ইনহাউজ ল্যাবে গার্মেন্টস ওয়াশ করে মেজারমেন্ট চেক  করতে হবে এ রেকর্ড রাখবে

৪. ৬.১১ যদি বড় ধরনের কোন পার্থক্য থাকে তাহলে বায়িং অফিসের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

৪. ৬.১২ সর্বশেষ টোটাল প্রিংকেজ উপর সামারি তৈরী করতে হবে।

৪.৭ ব্ল্যাংকেট তৈরিঃ প্রতিটি রোল থেকে ৮˜ X ৮˜ ফেব্রিক কেটে ব্ল্যাংকেট তৈরী করবে। ব্ল্যাংকেট এর উপর রোল নাম্বার, শেষ নাম্বার, ফেব্রিকের পরিমান ইত্যাদি লিখবে। সব গুলি রোল একই দিনে সুইং করবে। সর্বমোট ৬ সেট তৈরী করবে, ফ্যাক্টরীর জন্য নন ওয়াশ ১ নেট, অল শেষ ১ সেট, শেষ বুক/কান্ট্রি প্ল্যান ১ সেট, শেষ ওয়াইজ ১ সেট, ওয়াশিং প্ল্যান্টের জন্য নন ওয়াপ এবং ওয়াশ ২ সেট, প্রয়াশ স্ট্যান্ডার্ড বা এজত সাম্পল দিয়ে ওয়াশে পাঠাবে। ওয়াশ থেকে আশার পর ডার্ক রুমে শেষ চেক করবে এবং শেড অনুযায়ী আলাদা করবে।

৪.৮ প্যার্টান গ্রুপিংঃ স্রিংকেজ অনুযায়ী প্যার্টান গ্রুপিং করা হয়। স্ট্রিংকেজ এর (+ -) ১% এর ক্ষেত্রে এক প্যার্টান থাকে, যদি (+ -) ১% এর বেশী হয় তাহলে অন্য প্যার্টান ব্যবহার করা।

৪.৯ শেড বুক/ শেড সামারিঃ শেভ ব্ল্যাংকেট থেকে শেষ আলাদা করার পর প্রতিটি শেড অনুযায়ী সামারি করা হয়। প্রতিটি শেড অনুযায়ী পরিমান লেখা থাকবে।

৪.১০ টুইস্টিংঃ ১০% রোল থেকে টুইষ্টিং চেক করবে ব্যাগ তৈরীর মাধ্যমে প্রথমে ফেব্রিক ৫২ সিএম গ্রন্থ, ১০৪ সিএম দৈর্ঘ্য কাটবে, যে দিক খোলা থাকবে সেই সাইড ১ সিএম করে ডাবল ফোল্ড করবে তারপর হাফ ফোল্ড করে দুই সাইড ওভারলক করবে। টুইষ্টিং চেক করার ক্ষেত্রে ওভেন ফেব্রিক এর জন্য টুইন্টিং (+) ৩% এবং জার্সি ফেব্রিক এর জন্য (+-) ৫% পর্যন্ত গ্রহনযোগ্য।

৪.১১ টিউবঃ ফেব্রিক ইন্সপেকশন চলাকালীন কাপড়ের রোলের প্রথম, মাঝে, এবং শেষ থেকে ফেব্রিক কাটবে এবং পরে এগুলো সাইড টু সেন্টার এবং সাইড টু সাইড ফেব্রিকের শেড চেক করবে কোন রানিং শেড আছে কি না।

৪.১২ কান্ট্রি প্ল্যানঃ অর্ডার শীট অনুসারে এবং শেড অনুযায়ী, কান্ট্রির পরিমান অনুযায়ী কান্ট্রি প্ল্যান করবে। একটি কান্ট্রির জন্য এক শেডের গার্মেন্টস শীপমেন্ট করবে। যদি এক কান্ট্রিতে অধীক শেড ব্যবহার করতে হয় সেই ক্ষেত্রে বায়িং অফিসের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

৪.১৩ হাউস কিপিংঃ হাউজ কিপিং হল পরিষ্কার পরিষন্নতা, গার্মেন্টস-সুন্দরভাবে গুছিয়ে রাখা, কালার মিক্সড করে না রাখা, চোরে গার্মেন্টস না ফেলা, আইডেল মেশিনের উপর গার্মেন্টস না রাখা, ফ্লোরে কোন খাবার না আনা ও খাওয়া। গার্মেন্টস তৈরির সময় ঝুড়ি / প্লেট ব্যবহার করা এবং ওয়াল থেকে ০১ ফিট দূরে রাখা।

4.14 Related Documents (Fabric Inspection)

4.14.1 Check List Fabric Section

4.14.2 Fabric Inspection Machine Calibration Record

4.14.3 100/10% Roll Moisture Check Report

4.14.4 100 / 10% Roll Weight Check Report

4.14.5 Country Plan

4.14.6 Visual Fabric Inspection / Roll

4.14.7 Visual Fabric Inspection Summary

4.14.8 Fabric Inspection Report

4.14.9 Fabrics Shade Band & Shrinkage Test Report

4.14.10 Fabric Skewness & GSM Report

4.14.11 Fabrics Shade Band & Shrinkage Summary

4.14.12 Fabric Shrinkage Pattern Wise Summary

4.14.13 Fabric Inspection Roster Record

4.14.14 Shade Report

4.14.15 Fabric Twisting / Skewness Test Report

4.14.16 Shade Band & Shrinkage Test Report

4.14.17 Fabric Inspection, Blanket Wash, Shrinkage & Shade Band Status

4.14.18 Concernment wise Fabric Inspection Report for QMS

4.14.19 Fabric Supplier Performance Evaluation Graph

4.14.20 Shade Wise Roll Selection

4.14.21 Appearance Test

                                                                                                    Reviewed by Top Management

One thought on “Fabric Inspection SOP (Standard Operating System)

  1. hiI like your writing so much share we be in contact more approximately your article on AOL I need a specialist in this area to resolve my problem Maybe that is you Looking ahead to see you

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Get 30% off your first purchase

X
error: Content is protected !!